ছাত্রদলে কেউ কারো কথা শুনেনা,কয়েক দফা হামলা

2000px-জাতীয়তাবাদী_ছাত্রদলের_লোগো.svgসুফিয়ান আহমদ: বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রদলের অভ্যন্তরীণ বিরোধ এখন তুঙ্গে। গ্রুপিং রাজনীতির যাঁথাকলে নিজ দলের সহকর্র্র্মীর রক্তে রঞ্জিত হচ্ছে এখানকার রাজপথ-ব্যবসা প্রতিষ্টান। এ ছাত্র সংগঠনের চেইন অব কমান্ড এখন আর নেই বললেই চলে। উপজেলা, কলেজ কিংবা পৌর ছাত্রদলে কেউ কারো কথা শুনেনা। গত সপআহে অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে বিয়ানীবাজারে প্রতিপক্ষের হামলায় ছাত্রদলের ৩ নেতাকর্মী আহত হয়। গত মঙ্গলবার দুপুরে পৌর শহরের কলেজ রোডে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। আহতরা হলো-উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আনোয়ার হোসেন লিটন (২৫), বুরহান (২৪) ও আলমাছ (২৮)।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,গত মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বিয়ানীবাজার সরকারী কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি আলম হোসেন চৌধুরী সমর্থিত রিভার বেল্ট গ্রুপের নেতা উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আনোয়ার হোসেন লিটন, ছাত্রদল কর্মী বুরহান ও আলমাছ কলেজ রোডের একটি চায়ের ষ্টল থেকে বের হন। তারা ষ্টল থেকে বের হওয়া মাত্র পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মিছবাহ উদ্দিন সমর্থিত গ্রুপের নেতাকর্মীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায়। উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মিছবাহ উদ্দিন বলেন, হামলার ঘটনায় তার গ্রুপের কেউ জড়িত নয়। তবে আহত ছাত্রদল নেতা আনোয়ার হোসেন লিটন তাদের উপর হামলার ঘটনায় মিছবাহ গ্রুপের ক্যাডাররা জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন। এর আগে গত ৪ অক্টোবর কলেজ রোড মোড়ে উপজেলা যুবদলের আহবায়ক জসীম উদ্দিনের ছেলেকে মারধর করে অপর পক্ষের নেতাকর্মীরা। পৃথক এ ঘটনায় ২জন আহত হয়। ছাত্রদলের বিভিন্ন ইউনিটে জেলা ছাত্রদল কর্র্তৃক কমিটি ঘোষনার পর আভ্যন্তরীন বিরোধ নিয়ে পরস্পরের বিরুদ্ধে কয়েক দফা চোরাগোপ্তা হামলা চালানো হয়। বিয়ানীবাজারে ছাত্রদলের মোট ৪টি গ্রুপ পৃথকভাবে তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছে। উপজেলা ছাত্রদলের দেশত্য্গাী আহবায়ক মোর্শেদ আলম বাবর, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মিছবাহ উদ্দিন, সদস্য সচিব বি.হোসেন বাবলু ও কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি আলম হোসেন চৌধুরী গ্রুপগুলোর নেতৃত্ব দিচ্ছেন।
প্রসঙ্গত, বিএনপি-ছাত্রদলের বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখায় চরম অস্বস্থি বিরাজ করছে। বিএনপির কোন্দল এখন ছড়িয়ে পড়ছে ছাত্র সংগঠন ছাত্রদলেও। এ প্রেক্ষাপটে আকস্মিক ঘোষণা করা হয় বিয়ানীবাজার ছাত্রদলের উপজেলা, পৌর ও কলেজ কমিটি। কমিটি ঘোষণার দু’দিন পর কলেজ ক্যাম্পাসে ছাত্রদলের নতুন সভাপতি আলম হোসেন চৌধুরীর উপর হামলা করে প্রতিপক্ষ গ্রুপের নেতাকর্মীরা। পরে পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক রুহেল আহমদ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে অনাস্থা জানিয়ে সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। এর রেশ কাটতে না কাটতেই গত ২৭ আগষ্ট দুপুরে কলেজ রোডে প্রকাশ্যে ছাত্রদলের কলেজ সভাপতির সমর্থনপুষ্ট নেতাকর্মীরা পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল নোমানের উপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।