বিয়ানীবাজারে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

PMইকবাল হোসেন: আগামী ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে বিয়ানীবাজারে আসতে পারেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দিনব্যাপী এ সফরে তিনি অনেকগুলো প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। উদ্বোধনী কার্যক্রম শেষে প্রধানমন্ত্রী যথারীতি স্থানীয় একটি জনসভায় বক্তব্য রাখবেন। গত বছর থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিয়ানীবাজার সফরে নিয়ে আসার চেষ্টা চলছে বলে জানা গেছে। কিন্তু রাজনৈতিক অস্থিরতা, প্রধানমন্ত্রীর শিডিউল না পাওয়াসহ নানা কারনে এ সফর কেবল পেছানো হচ্ছিল। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে রাজনৈতিক স্থিতাবস্থা বজায় থাকলে এবং প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উইংয়ের সবুজ সংকেত পেলে তার বিয়ানীবাজারে আসা প্রায় নিশ্চিত, এটা বলা যায়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে। 

বর্তমান সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ নির্বাচনী আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদকে শিক্ষা ও প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়। পরে অবশ্য এই আসনের সাংসদকে শুধুমাত্র শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীত্বে রাখা হয়। তার মেয়াদকালে বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জে ব্যাপক উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করা হয়। অনেকগুলো বড় প্রকল্প শুরু করে তা সফলভাবে শেষ হয়। গত ২০১৩ সালে এসব অনেক উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করতে প্রধানমন্ত্রী সিলেট-৬ নির্বাচনী আসনের অপর উপজেলা গোলাপগঞ্জ সফর করেন। কিন্তু আওয়ামীলীগ সরকারের প্রায় সাত বছর মেয়াদ পূর্ন হতে চললেও প্রধানমন্ত্রী এখনো বিয়ানীবাজারে আসেননি। অনেকটা ‘আসি-আসি’ করেও তার আসা সম্ভব হচেছনা বলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্র জানায়।
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অঘোষিত বিশেষ সহকারী এবং কানাডা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্টাতা সভাপতি ছরওয়ার হোসেন বিয়ানীবাজারকন্ঠকে জানান, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ডিসেম্বরে প্রধানমন্ত্রী বিয়ানীবাজারে আসতে পারেন।
লন্ডন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আফছার খান সাদেক বিয়ানীবাজারকন্ঠকে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর বিয়ানীবাজারে আসার বিষয়টি লন্ডন সফররত জনপ্রশাসন মন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের কাছ থেকে তিনি অবহিত হয়েছেন। এদিকে প্রধানমন্ত্রী বিয়ানীবাজার সফরকালে পৌরশহরের পিএইচজি হাইস্কুলকে সরকারী করণের ঘোষনা দিতে পারেন বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। এছাড়াও তিনি সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়কের উপর নির্র্মিত বেশ কয়েকটি সেতুর উদ্বোধন, উপজেলা প্রশাসনের আধুনিক ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন, মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের উদ্বোধন, স্মৃতি সৌধ উদ্বোধন, চারখাইয়ে নির্র্মিতব্য বিদ্যুৎ প্লান্টের উদ্বোধনসহ আরো বড় ধরনের কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধন করতে পারেন। সচিবালয়ে দ্বায়িত্ব পালন করা শিক্ষামন্ত্রীর এপিএস মো: জাকির হোসেন বিয়ানীবাজারকন্ঠকে জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিয়ানীবাজার সফরের দিনক্ষণ এখনো ঠিক হয়নি। তবে আশাকরি অচিরেই একটি সূ-নির্দিষ্ট তারিখ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানানো হবে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর পূর্বেও দু’বার বিয়ানীবাজার সফর করেন। এরমধ্যে একবার তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন সময়ে এবং আরেকবার বিরোধী দলীয় নেত্রী থাকাকালে তিনি এই উপজেলা ঘুরে যান।