সাঈদ হত্যা মামলায় চার্জ গঠন অভিযুক্ত ৪ জন

SDসিলেট :  ৯ বছরের শিশু আবু সাঈদকে অপহরণ ও হত্যা মামলায় চার্জ গঠন করেছেন আদালত। সিলেট নারী ও শিশু নির্যাতন ট্র্যাইব্যুনালের বিচারক আজ রবিবার দুপুরে ৪ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জ গঠন করেন।

অভিযুক্তরা হচ্ছেন নগরীর বিমানবন্দর থানার কনস্টেবল (বরখাস্তকৃত) এবাদুর রহমান পুতুল, র‌্যাবের কথিত সোর্স আতাউর রহমান গেদা, সিলেট জেলা ওলামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম রাকিব ও প্রচার সম্পাদক মাহি হোসেন মাছুম। এর মধ্যে মাছুম পলাতক ও বাকিরা কারান্তরীণ রয়েছেন।

আদালত পলাতক মাছুমের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট জারিসহ তার মালামাল ক্রোকের নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে গত ২৯ অক্টোবর সিলেট মহানগর হাকিম প্রথম আদালত থেকে সিলেট নারী ও শিশু নির্যাতন ট্র্যাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। ওইদিন মহানগর হাকিম প্রথম আদালতের বিচারক সাহেদুল করিম মামলাটি স্থানান্তর ও বিচার শুরুর তারিখ নির্ধারণ করেন।

এরও আগে গত ২৩ সেপ্টেম্বর বিকেলে সিলেট মহানগর হাকিম ১ম আদালতে অভিযোগপত্রটি দাখিল করেন মহানগর পুলিশের সহকারি কমিশনার (প্রসিকিউশন) আবদুল আহাদ চৌধুরী। মামলাটি তদন্ত করেন কোতোয়ালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোশাররফ হোসাইন।

চলতি বছরের ১১ মার্চ সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সিলেট নগরীর রায়নগর থেকে স্কুলছাত্র আবু সাঈদকে (৯) অপহরণ করা হয়। এরপর ১৩ মার্চ রাত সাড়ে ১০টায় বিমানবন্দর থানার পুলিশ কনস্টেবল এবাদুর রহমান পুতুলের কুমারপাড়াস্থ ঝর্ণারপাড় সবুজ-৩৭ নং বাসার ছাদের চিলেকোঠা থেকে সাঈদের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।