বুধবার ক্ষমতা ছাড়ছেন ক্যামেরন

ডেস্ক : আগামীকাল বুধবার ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন কনজারভেটিভ পার্টির নেতা ডেভিড ক্যামেরন। ওই দিন তিনি রাজপ্রাসাদে গিয়ে রানির কাছে নিজের পদত্যাগপত্র জমা নেবেন ।

 
সোমবার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড় থেকে জ্বালানিমন্ত্রী আন্ড্রে লিডসম সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেওয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পথ সুগম হয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেরেসা মের। এরপরই বুধবার পদত্যাগপত্র জমা দেওয়ার ঘোষণা দেন ক্যামেরন।

 
গত ২৩ জুন অনুষ্ঠিত গণভোটে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষ জয়ী হয়। ফল ঘোষণার দিনই ইইউতে যুক্তরাজ্যের থেকে যাওয়ার পক্ষে প্রচারণাকারী প্রধানমন্ত্রী ক্যামেরন পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

 
কনজারভেটিভ পার্টির পরবর্তী নেতা নির্বাচন এবং দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রতিদ্বন্দ্বীদের সর্বশেষ মাঠে ছিলেন ক্যামেরন সরকারের জ্বালানিমন্ত্রী আন্ড্রে লিডসম ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেরেসা মে। আগামী ৯ সেপ্টেম্বর কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যদের ভোটে দলীয় নেতাকে নির্বাচন করার কথা ছিল। কিন্তু লিডসম সোমবার হঠাৎ করেই সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। তাই প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাতেই জিতে গেলেন থেরেসা মে। এর ফলে লৌহমানবী হিসেবে খ্যাত মার্গারেট থ্যাচারের পর থেরেসাই হচ্ছেন প্রথম নারী, যিনি যুক্তরাজ্যের সরকারপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

 
সোমবার ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের বাইরে সাংবাদিকদের ক্যামেরন বলেন, থেরেসা মে তার উত্তরসূরি হওয়ায় তিনি আনন্দিত।

 
ক্ষমতা হস্তান্তরে বেশি সময় দেওয়ার প্রয়োজন নেই জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আগামীকাল (মঙ্গলবার) আমি মন্ত্রিসভার শেষ বৈঠকে সভাপতিত্ব করব। বুধবার হাউস অব কমন্সে প্রধানমন্ত্রীর জন্য প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশগ্রহণ করব। আশা করছি এরপরই রাজপ্রাসাদে গিয়ে আমি আমার পদত্যাগপত্র জমা দেব।’