সঞ্জয় আচার্যে’র কবিতা: আগমনী ৭

আগমনী ৭
সঞ্জয় আচার্য

মনের ভেতরে রোজ হাঁটাহাঁটি দিতে এলি কেন ধাক্কা
প্লাস্টিক বোতল দিয়ে নিই দু’শো গ্রাম মনক্কা

এই আছ এই নেই দেহে কামনার নারীগন্ধ
ডার্করুমে বসে ছবি আঁকি স্থাপত্যে বাজুবন্ধ।

বলতে পারো দায়ভার কার? কেন এত ভাষামৃত্যু?
কার সাথে ভাবে মজে আছ আর কার হয় অপমৃত্যু।

কানের দুলেতে কথা ছুঁয়ে যায় ঢেউ জাগে ফিসফিস,
হাঁটু গেড়ে বলি ‘দিলাম তোমায়’, আদবেতে কুর্নিশ।

মাথামোটা অপশক্তির ভিড়ে প্রেম জেগে ওঠে ঠোঁটে
ক্রসফায়ারের ফাঁদে পড়ে রাতে ক্যাডাররা কেঁপে ওঠে।

নাট্যরূপে নাম লিখিয়েছ স্ক্রীপ্ট ছিল ভুলে ভরা,
ক্লাইম্যাক্স শেখা হয় নি তোমার তাই এত মনমরা।

বিলাসী ভবনে কঠিন মানুষ যুক্তির দেখা নেই
খুঁজে নিও ওই নকল সোনায় মিশে আছি ওটাতেই।

রাত জাগা হলে রেডী হয়ে যায় নরম ঘ্রাণের গল্প,
নীরা নেই তবু প্রেমের কবিতা হয় না মৃতকল্প।