‘বাংলাদেশে আর রাজাকার-জঙ্গি সমর্থিত সরকার নয়’

বিয়ানীবাজারকণ্ঠ.কম ডেস্ক :

বাংলাদেশের মাটিতে আর কোনোদিন রাজাকার ও জঙ্গি সমর্থিত সরকার দেখতে চান না জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) একাংশের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনের সামনে দলীয় সমাবেশে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। এ সময় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে সকল চক্রান্তকারীকে উচ্ছেদ করতে শোকের মাসে শপথ নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘১৫ আগস্ট কতিপয় উচ্ছৃংখল বিপথগামী সেনা অফিসাররা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। এ হত্যাকাণ্ড বাংলাদেশের রাজনীতির ইতিহাসে সবচেয়ে ন্যক্কারজনক ঘটনা। আগস্ট মাস শোকের মাস। আগস্ট মাস বাংলাদেশের রাজনীতির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ষড়যন্ত্রমূলক ও চক্রান্ত্রমূলক আঘাতেরও মাস। ১৫ আগস্ট যেমন একটি বড় ষড়যন্ত্রমূলক আঘাতের ঘটনা, তেমনই ২১ আগস্টও, যেদিন শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছিল, সেটাও আরেকটা বড় ধরনের আঘাত ও ষড়যন্ত্রের ঘটনা।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিপথগামীরা ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সংবিধানের ওপর আঘাত হানে। বাংলাদেশের ওপর আঘাত হানে। তারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যের ওপর আক্রমণ চালায়। এই খুনিরা শুধু একটি মানুষকেই হত্যা করেনি, বাংলাদেশের অস্বিস্তকে চ্যালেঞ্জ করেছিল। যারা একাত্তরে পরাজিত হয়েছিল, সেই স্বাধীনতাবিরোধীরাই সেদিন আক্রমণ করেছিল। যারা একাত্তরে যুদ্ধ করে হেরেছিল, তারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ আবার দখল করার চেষ্টা চালায়।’

‘আজকে এই বাংলাদেশে যখন আমরা সামনের দিকে তাকাচ্ছি, তখন সেই ৭৫-এর খুনিরাই বাংলাদেশে ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত করছে। তারা জঙ্গি-সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে চক্রান্ত করছে। সেই ৭৫-এর খুনিরাই বাংলাদেশকে আবার সংবিধানের বাইরে ঠেলে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। অস্বাভাবিক সরকার কায়েম করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তারা আবার নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করছে,’ বলেন তথ্যমন্ত্রী।

এই শোকের মাস শুধু চোখের পানি ফেলার মাস নয়, প্রতিরোধ-প্রতিশোধ গ্রহণের শপথের মাস, এ কথা উল্লেখ করে জাসদের একাংশের সভাপতি বলেন, ‘আজকে যারা বাংলাদেশের অগ্রগতির পথে কাঁটা হয়ে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে, সেই চক্রান্তকারীরা হচ্ছে রাজাকার, সাম্প্রদায়িক শক্তি, জঙ্গিবাদী ও যুদ্ধাপরাধী চক্রের দোসর।’

তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর রক্তের ঋণ শোধ করতে হলে, বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে হলে সকল সাম্প্রদায়িক জঙ্গিবাদী চক্রান্ত উচ্ছেদ করতে হবে। এটাই আমাদের শপথ ও অঙ্গীকার। বাংলাদেশকে আমরা যারা এগিয়ে নিতে চাই, সংবিধানের পথে, গণতন্ত্রের পথে, উন্নয়নের পথে। সেই পথে এখন আগুনসন্ত্রাসী ও জঙ্গিরা বাধা দিচ্ছে। তাই, এই বাধা ধ্বংস করতে হবে। এই চক্রান্তকারীদের সমূলে ধ্বংস করতে হবে। বাংলাদেশে আর কোনদিন রাজাকার সরকার ও জঙ্গি সমর্থিত সরকার নয়। বাংলাদেশে আর কোনদিন ১৫ আগস্ট ও ২১ আগস্ট হতে দেওয়া হবে না। এটাই হোক আমাদের অঙ্গীকার।’

সমাবেশ শেষে জাসদ একটি মিছিল বের করে। মিছিলটি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনে গিয়ে শেষ হয়।

জাসদ একাংশের ঢাকা মহানগর সমন্নয়ক মীর আকতার হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন- সাধারণ সম্পাদক শিরিন আক্তার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন, নাদের চৌধুরী প্রমুখ।