মুক্তামনির জন্য দোয়া চাইলেন তার বাবা

বিয়ানীবাজারকণ্ঠ.কম

হাতে চর্মরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন সাতক্ষীরার ১২ বছর বয়সী শিশু মুক্তামনির জন্য দোয়া চেয়েছেন তার বাবা রাজু মিয়া। শনিবার ডান হাতের অস্ত্রোপচার শেষে শিশুটির বাবা মেয়ের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চান।

আড়াই ঘণ্টা পর শনিবার সকাল ১১টা ২৫মিনিটে মুক্তামনির হাতে সফল অস্ত্রোপচার শেষ করেন চিকিৎসকরা। এরপর হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে নেয়ার সময় মুক্তামনি চোখ খোলেন বলে জানান চিকিৎসক ও তার বাবা-মা।

সকাল পৌনে নয়টার দিকে মুক্তামনির অস্ত্রোপচার শুরু হয়। আড়াই ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলে অস্ত্রোপচার। সাড়ে ১১টার পর মুক্তামনিকে যখন আইসিইউতে নেয়া হয় তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন মুক্তামনির বাবা রাজু মিয়া, মা সাহিদা বেগম এবং চাচা। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মুক্তামনির বাবা।

মুক্তামনির বাবা বলেন, অস্ত্রোপচারের পর আইসিইউতে নেয়ার সময় মুক্তামনি তাদের ডাকে সাড়া দেয়। আইসিইউতে নেয়ার পর তার বাবা মুক্তামনিকে দেখতে যান। সেখানে বাবার কাছে শিশুটি পানি খেতে চান বলে জানান রাজু মিয়া। পরে চিকিৎসকদের পরামর্শা অনুযায়ী তিনি আইসিইউ থেকে বেরিয়ে আসেন।

হাত রেখেই সফলভাবে অস্ত্রপোচার সম্পন্ন হওয়ায় দেশবাসীর কাছে দোয়া চান মুক্তামনির বাবা রাজু মিয়া।

ডান হাতে অস্বাভাবিক চর্মরোগে আক্রান্ত হয়ে গত ১২ জুলাই ঢামকের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি হন মুক্তামনি। তাকে নিয়ে দেশের অনেক গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিশুটির চিকিৎসার সব দায়িত্ব গ্রহণ করেন। পরে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম মুক্তামনিকে ঢাকা মেডিকেলে দেখতে যান। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় মুক্তামনির চিকিৎসার সব দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

২ আগস্ট মেডিকেল বোর্ড মিটিংয়ে মুক্তামনির চিকিৎসা করার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর তার হাতে এক দফা অস্ত্রোপচার করা হয়। পরে বায়োপসি করার পর মুক্তামনি রক্তনালীতে টিউমার ধরা পড়ে।