হাকালুকি পারের কবি এখন হাসপাতালের বিছানায় দোয়া ও সাহায্য কামনা

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি:

হাকালুকি হাওর পারের কবি হিসেবে পরিচিত গোলাপগঞ্জ উপজেলার শরীফগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের  সাবেক সদস্য ঈসমাইল হোসেন সিরাজী। তিনি ‘দেখে যাবেন কেউ , হাকালুকির ঢেউ ’ কাব্য গ্রন্থের রচয়িতা। উপজেলা সদরের সাথে সরাসরী সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন  কুশিয়ারা নদী ও হাকালুকি হাওর পাওে এই কবি  একাধারে সমাজ সেবক ও পল্লীচিকিৎসক।  ইসমাঈল হোসেন সিরাজী উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার দূরে বসবাস করলেও ঐ এলাকার সমস্যা-সম্ভাবনা, সুখ-দুঃখের কথা সাংবাদিকরা তার মাধ্যমেই সংগ্রহ করে থাকেন। মানবসেবায় নিবেদিত ইসমাইল হোসেন তার এলাকায় বিদ্যুৎ লাইনের কাজে  স্বেচ্ছাশ্রম দিতে গিয়ে ২০১৩ সালে  বৈদ্যুতিক পুলের (খুটি) আঘাতে কোমরে ও মেরুদন্ডে আঘাত পান।  অতি দরিদ্র পরিবারের সদস্য ইসমাঈল হোসেন সিরাজী ২০১১ সালে শরীফগঞ্জ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে বিপুল ভোটে সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। তার প্রতিদ্বন্ধিরা যখন বিজয়ের জন্য বিপুল সংখ্যক অর্থ ব্যয় করেছে, তখন ইসমাঈল হোসেন শুধু ভোট পাননি ভোটারদের ভালবাসার নিদর্শন স্বরূপ অনেক টাকাও পেয়েছেন। মানবসেবক ইসমাঈল হোসেন সিরাজী আজ মেরুদন্ড ও কোমরে আঘাতজনিত  রোগে আক্রান্ত হয়ে সিলেট রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তৎকালীন সময়ে  গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার এলাকার এমপি শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ হাসপাতালে গিয়ে ইসমাঈল হোসেনকে দেখে আর্থিক সহায়তা দেন। পুরোনো রোগটি এখন আবার দেখা দেয়ায় অনেকটা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে সময় পার করছেন এ সমাজকর্মী। সম্প্রতি হাকালুকি হাওড়ের রূপ বৈচিত্র দেখতে গোলাপগঞ্জের প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সংবাদ কর্মীরা নৌ-ভ্রমনে গেলে সাংবাদিকদের বন্ধু ইসমাঈল হোসেন সিরাজী সার্বক্ষনিক ছিলেন গাইড হিসেবে। তার আত্মীয়েতায় মুগ্ধ হয়ে উঠেন গোলাপগঞ্জের সাংবাদিক সমাজ। চার সন্তানের জনক ইসমাঈল হোসেন’র চার শতক ভুমির উপর একটি মাত্র ঘর ছাড়া আর কোন সম্পদ নেই। এই ঘরের একটি কক্ষে ঔষধপত্র ও বিভিন্ন ধরনের খাবার সামগ্রীর দোকান দিয়ে তার পরিবার চলতো। এখন তিনি অসুস্থ্য হয়ে পড়ায় দোকানটিও পরিচালনা করার মত কোন লোক নেই। তার স্বরচিত কাব্যগ্রন্থ “দেখে যাবে কেউ, হাকালুকির ঢেউ” ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। সিলেট মুসলিম সাহিত্য সংসদের বিগত বই মেলায় তার এ কাব্যগ্রন্থ ব্যাপক প্রচার পায়। ইসমাঈল হোসেন সিরাজীর মত একজন সৎ, নির্লোভ, মানব দরদী ব্যক্তির চিকিৎসার জন্য এগিয়ে আসা প্রয়োজন। হাসপাতালের বিছানা থেকে  ইসমাঈল হোসেন সিরাজী  মোবাইল ফোনে কল করে তার সুস্থ্যতার জন্য বন্ধু-বান্ধব, পরিচিত মহল, শুভাকাঙ্খি সহ সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছেন। তার সাথে যোগাযোগর নাম্বার ০১৭৫৮০৪৭৭৯২।