শেষ দৌড়টা শেষই করতে পারলেন না বোল্ট

ক্রীড়া ডেস্ক বিয়ানীবাজারকণ্ঠ.কম ::

নিয়তি বড়ই নিষ্ঠুর। হয়তো কিংবদন্তিকে বিদায় দিতে চাননি ‘প্রিয়’ ট্রাকও। স্বাভাবিক! সম্পর্কটা এত ঠুনকো নয়, বোল্ট বললেই তাকে যেতে দেবে। যে ট্রাকে অসংখ্যবার দৌড়ালেন উসাইন বোল্ট। উদযাপনের আনন্দে মাতোয়ারা হলেন বহুবার। সেই ট্রাক কি করে  তাকে গুডবাই বলবে। তাইতো মাঝপথেই বোল্টের দৌড় থামিয়ে দিল। শেষমেশ চোটের যন্ত্রণা কাঁধে বয়ে খালি হাতেই বাড়ি ফিরলেন বোল্ট।

যাবার বেলায় কিছু নিয়ে যেতে পারলেন না বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অ্যাথলেট। স্বপ্নেও ভাবেননি ভক্তরা। ১০০ মিটারে ব্যর্থতার পর ৪*১০০ মিটারে ছোঁয়া হলো না শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট। শনিবার রাতটা যেন কিছুতেই ভোর হচ্ছে না বোল্টের। লন্ডন স্টেডিয়ামে বোল্টকে পেছনে রেখে ৩৭.৪৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে সবার আগে দৌড় শেষ করেছেন গ্রেট ব্রিটেন ও নর্দান আয়ারল্যান্ড।

৩৭.৫২ সেকেন্ড সময় নিয়ে রূপা জিতেছে যুক্তরাষ্ট্র। ৩৮.০৪ সেকেন্ডে ব্রোঞ্জ জিতেছেন জাপান। আর বিশ্বের লক্ষ-কোটি সমর্থকের ভালোবাসার মানুষটি তখন লুটিয়ে পড়েছেন ট্রাকে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ৪*১০০ মিটার রিলেতে এর আগে চারটি সোনা জমা পড়েছে বোল্টের শোকসে। আশা ছিল পঞ্চম সোনায় হাত রেখে লড়াইটা শেষ করবেন। হলো না।

২০১১ সালে ১০০ মিটারে একবার ডিসকোয়ালিফাইড হয়েছিলেন বোল্ট। এর পর ২০০৯ থেকে এই আসরের আগ পর্যন্ত প্রতিটি ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ৪*১০০ মিটার রিলেতে রাজাই ছিলেন অলিম্পিকে আটটি সোনা জয়ী বোল্ট। ১১টি সোনার পদক নিয়েই দৌড় অধ্যায়ের ইতি টানলেন এই জ্যামাইকান গতি দানব।