চারখাই পাওয়ার গ্রিড স্টেশন থেকে ১৩টি উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে

বিয়ানীবাজারকণ্ঠ ডেস্ক ::

বিয়ানীবাজার উপজেলায় প্রায় শত কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে একটি পাওয়ার গ্রিড স্টেশন। এ গ্রিড স্টেশন থেকে সিলেটের ১৩টি উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ (পিজিসিবি) এই গ্রিড স্টেশনটি নির্মাণ করছে। আগামী ৩০ বছরের চিন্তা মাথায় রেখে নির্মাণাধীন গ্রিড স্টেশন প্রকল্পের কাজ প্রায় শেষের দিকে। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই গ্রিড স্টেশনটি চালু করে বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের মার্চ মাসে বিয়ানীবাজার উপজেলার চারখাইয়ে একটি নতুন পাওয়ার গ্রিড স্টেশন নির্মাণকাজ শুরু হয়। ৮০ এমবিএ ক্ষমতাসম্পন্ন এই গ্রিড স্টেশন থেকে বিদ্যুৎ যাবে সিলেটের ১৩টি উপজেলায়। তবে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হবে বিয়ানীবাজার, গোলাপগঞ্জ, জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলাকে।

জানা যায়, সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এবং সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর মাধ্যমে জেলার ১৩টি উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। তন্মধ্যে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ জেলার ৮টি উপজেলায় এবং পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ জেলার ৫টি উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করে। তবে সিলেট নগরী ও আশপাশের কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)।

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সূত্র জানায়, সরকার সিলেটসহ সারাদেশকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আনার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এরই অংশ হিসেবে সিলেটের ১৩টি উপজেলাকেও শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আনার কাজ চলছে। ইতিমধ্যে সিলেট সদর উপজেলা ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সিলেটের বাকি ১১টি উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আনতে, বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং ক্রমবর্ধমান গ্রাহকসংখ্যার চাপ সামাল দিতেই বিয়ানীবাজারে ওই গ্রিড স্টেশন নির্মাণ করা হচ্ছে। এ প্রকল্পে সংযোগ সড়ক নির্মাণ, টাওয়ার নির্মাণসহ আনুষাঙ্গিক সব কাজ মিলিয়ে প্রায় শত কোটি টাকা ব্যয় হচ্ছে।

সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার মাহবুবুল হক  বলেন, ‘বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার উন্নতিকল্পে আগামী ৩০ বছরের চিন্তা মাথায় রেখেই বিয়ানীবাজারের চারখাইয়ে গ্রিড স্টেশন নির্মাণ করা হচ্ছে। ৮০ এমবিএ ক্ষমতাসম্পন্ন এ গ্রিড স্টেশন নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে প্রায় শত কোটি টাকা।’

তিনি বলেন, ‘গ্রিড স্টেশন নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শেষের দিকে রয়েছে। বর্তমানে গ্রিড স্টেশন থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহে সংযোগ লাইন স্থাপনের কাজ চলছে। এ কাজ শেষে আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে স্টেশনটি চালু করা যাবে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বর্তমানে সিলেটের কুমারগাঁও গ্রিড এবং ফেঞ্চুগঞ্জ গ্রিডের মাধ্যমে সিলেটের সকল উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। কুমারগাঁও গ্রিড থেকে আট উপজেলায় এবং ফেঞ্চুগঞ্জ গ্রিড থেকে পাঁচ উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। তবে কুমারগাঁও গ্রিডে ওভারলোডের সমস্যা রয়েছে। প্রায় সময়ই এটি ৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের লোড নিতে পারে না। এছাড়া কুমারগাঁও গ্রিড থেকে বিভিন্ন দূরবর্তী উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যয়সাপেক্ষ ও এতে সিস্টেম লসও হয়। বিয়ানীবাজারে গ্রিড স্টেশন নির্মাণের পেছনে এসব বিষয়ও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর বিয়ানীবাজার জোনের ডিজিএম অভিলাস চন্দ্র পাল বলেন, ‘প্রকল্পের কাজ শেষ হলে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ গ্রিড স্টেশন থেকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করবে।’