ভারতে আবারও শিষ্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্মগুরু গ্রেপ্তার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,

গুরুজির আশীর্বাদ নিতে আশ্রমে গিয়েছিলেন ১৯ বছরের এক তরুণী। সঙ্গে ছিলেন বাবা, মা, ভাই। কিন্তু, বিশেষ শান্তি মন্ত্র জপ করার অজুহাতে তরুণীকে আলাদা করে নিজের ঘরে ডেকে নিয়ে যান গুরুজি। অভিযোগ, তখনই তাকে ধর্ষণ করেন গুরুজি তথা জৈন সাধু শান্তি সাগর মহারাজ। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের গুজরাটের সুরাতে। তরুণীর অভিযোগের ভিত্তিতে ৪৫ বছরের ওই মহারাজকে গ্রেপ্তার করছে সুরাত পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, গত ১ অক্টোবর শান্তি সাগর মহারাজের আশ্রমে গিয়েছিলেন ওই তরুণী। অভিযোগ, তখনই নিজের ঘরে নিয়ে গিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন মহারাজ। ভয়ে অনেক দিন মুখ খোলেননি ওই তরুণী। বেশ কয়েক দিন পর পরিবারকে জানান।

১১ অক্টোবর রাত থানায় ওই সাধুর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়। পরে তরুণীকে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়। মেডিক্যাল রিপোর্টে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। এরপরই শনিবার পুলিশ শান্তি সাগরকে স্থানীয় থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকে। সন্ধ্যায় গ্রেপ্তার করা হয় তাকে।

সুরাতের পুলিশ কমিশনার সতীশ শর্মা টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, ‘তরুণীর  অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিযুক্ত সাধুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

হরিয়ানায় গুরমিত রাম রহিম সিং, রাজস্থানের কৌশলেন্দ্র প্রপনাচার্য ফলহারি মহারাজের পর ধর্ষণের অভিযোগের গ্রেপ্তার হলেন আরও এক স্বঘোষিত ধর্মগুরু।