বড়লেখায় এনসিসি ব্যাংক থেকে বৃদ্ধার ৮৯ হাজার টাকা নিয়ে গেছে প্রতারক চক্র (ভিডিও)

বড়লেখা প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় প্রতারণা করে ফরিদা বেগম (৭৫) নামের এক বৃদ্ধার ৮৯ হাজার টাকা নিয়ে গেছে প্রতারক দল। বুধবার (৮ নভেম্বর) সকাল ১১টা ৫৫ মিনিটে এনসিসি ব্যাংক বড়লেখা শাখায় এই প্রতারণার ঘটনা ঘটেছে। ফরিদা বেগম বড়লেখা পৌরসভার মহুবন এলাকার বাসিন্দা। এ ঘটনায় প্রতারণার শিকার ফরিদা বেগম বড়লেখা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগ পেয়ে থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শরীফ উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
ফরিদা বেগমের আত্মীয়স্বজন, পুলিশ ও ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, বুধবার এনসিসি ব্যাংক বড়লেখা শাখা থেকে ফরিদা বেগম ১ লাখ ৯২ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। ফ্রান্স থেকে তাঁর ছেলে এই টাকা পাঠিয়েছিল। এদিকে টাকা তুলে ব্যাংকের একটি সোফায় বসে ৯২ হাজার টাকা হাত ব্যাগে রাখেন। বাকি ৫০০ টাকার নোটের ৫০ হাজার টাকার দুটি বান্ডিলের ১ লাখ টাকা গুনছিলেন। এ সময় তিন ব্যক্তি এসে তাঁর কাছে বসে। এরমধ্যে একজন ফরিদা বেগমকে টাকা গুনে দেবার কথা বলে। টাকা গুনে একপর্যায়ে বলে তাদের কাছে ১ হাজার টাকার নোটের ১ লাখ টাকার একটি বান্ডিল আছে। তিনি চাইলে এটা তাকে দিতে পারে। ফরিদা বেগম সম্মত হলে ৫০০ টাকার দুটি বান্ডিল নিয়ে তাকে ১ হাজার টাকার নোটের ১ লাখ টাকার বান্ডিল দিয়ে দেয়। ফরিদা বেগম টাকা গুনে দেখেন এতে ৯৫ হাজার টাকা আছে। এটা বললে ওই ব্যক্তি পাঁচ হাজার টাকা পূরণ এবং গুনে দেওয়ার কথা বলে আবার ১ লাখ টাকার বান্ডিলটি নিয়ে নেয়। বান্ডিলের টাকা গুনে কিছুক্ষণ পর বান্ডিলটি ফেরত দিয়ে ব্যাংক থেকে বেরিয়ে যায়। ফরিদা বেগম আবার টাকা গুনলে দেখেন বান্ডিলে টাকা মাত্র ১১ হাজার। ৮৯ হাজার টাকাই নিয়ে যায় প্রতারক দল। এরপর ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানালে ততক্ষণে প্রতারকরা গা ঢাকা দিয়েছে।
এ ব্যাপারে ব্যাংক ম্যানেজার অজয় কুমার দত্ত বুধবার (০৮ নভেম্বর) বলেন, ‘বয়স্ক মহিলা। টাকা তোলার পর সোফায় বসে টাকা গুনছিলেন। আমরা সিসিটিভির ফুটেজে দেখেছি, লোকটি এমনভাবে টাকা গুনছে। সন্দেহ করার মতো না। মনে হবে ভাইবোন। টাকা গোনার পর আস্তে আস্তে ব্যাংক থেকে এরা (প্রতারক চক্র) বেরিয়ে গেছে। আমরা জানার আগেই লোকগুলো চলে গেছে।’
বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সহিদুর রহমান বুধবার (০৮ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে চারটায় বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। প্রতারণার শিকার ফরিদা বেগম থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’