সৌদির রাজকুমারী আটক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,

সৌদি আরবের চলমান দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে এই প্রথম কোনো রাজকুমারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আটক রাজকুমারীর নাম রিম বিন তালাল। সম্প্রতি আটক হওয়া ধনকুবের প্রিন্স আল ওয়ালিদ বিন তালালের মেয়ে তিনি।

যুবরাজ মোহাম্মদ সালমানের নেতৃত্বে দেশটিতে কথিত দুর্নীতি বিরোধী যে অভিযান চালাচ্ছেন তারই অংশ হিসেবে রিমকে আটক করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সৌদি সূত্র আরাবি২১ অনলাইনকে জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সৌদি সরকার রাজকুমারী রিমকে আটক করে। সৌদি রাজপরিবারের এই প্রথম কোনো নারী সদস্যকে আটক করা হলো। তবে রাজকুমারী রিমের বিরুদ্ধে কি অভিযোগ তা জানানো হয়নি।

গত শনিবার সৌদি আরবে হঠাৎ করেই দুর্নীতি বিরোধী কমিটি গঠন করা হয় যার প্রধান যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান।

এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ সৌদ আল-মোজেব এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, গত তিন বছর ধরে চালানো তদন্ত অনুযায়ী আমরা ধারণা করছি প্রায় ১০ হাজার কোটি ডলারের দুর্নীতি হয়েছে। গত কয়েক দশক ধরে পরিকল্পিতভাবে এগুলো করা হয়েছে। দুর্নীতিবিরোধী নতুন কমিটি ‘খুব দ্রুত কাজ’ করছে। এখনো পর্যন্ত ২০৮ জন ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছে। এর মধ্যে ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তিনি আরও দাবি করেছেন, চলমান ধরপাকড়ে দেশটির স্বাভাবিক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে না। শুধু ব্যক্তিগত ব্যাংক হিসাবই জব্দ করা হচ্ছে।

সৌদি আরবে সম্প্রতি দুর্নীতিবিরোধী ব্যাপক ধরপাকড় শুরু হয়েছে। দেশটির নতুন দুর্নীতি দমন কমিটি ১১ জন প্রিন্স, বর্তমান ও সাবেক মন্ত্রীসহ মোট ৩০ জনকে আটক করা হয়। গত শনিবার বাদশাহ সালমান এক ডিক্রির মাধ্যমে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নেতৃত্বে নতুন এই কমিটি গঠনের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এই ধরপাকড় শুরু হয়।

দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের নামে এসব ব্যক্তিকে আটক করা হলেও বিশ্বের বহু বিশ্লেষক মনে করছেন, যুবরাজ মুহাম্মাদ নিজের ক্ষমতা নিরংকুশ করার জন্য এসব ধরপাকড় অভিযান চালাচ্ছে। নিজের ছেলেকে ক্ষমতায় বসাতে জন্য এবং তার ভাবমর্যাদা উজ্জ্বল করার জন্য বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজ দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের নামে এসব করাচ্ছেন।

সূত্র: পার্স টুডে ও ইন্ডিপেনডেন্ট নিউজ