বড়লেখায় যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রায় এক গ্রুপের হামলা

বড়লেখা প্রতিনিধি :

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আনন্দ শোভাযাত্রায় পৌর যুবলীগ হামলা করেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। বড়লেখা উপজেলা শাখা যুবলীগের উদ্যোগে বের হওয়া প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আনন্দ শোভাযাত্রায় এ হামলা করা হয়। শনিবার (১১ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টায় শহরের ইসলামীয়া বিল্ডিং এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে ইউনিয়ন যুবলীগের এক সভাপতিসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও যুবলীগের দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বড়লেখা উপজেলা শাখা যুবলীগ পৌর শহরে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা বের করে। শোভাযাত্রাটি পৌর শহরের ইসলামীয়া বিল্ডিং এলাকায় পৌঁছা মাত্র পৌর যুবলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক নোমান আহমদের নেতৃত্বে লাঠিসোটা নিয়ে শোভাযাত্রায় হামলা করা হয়। এতে উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি আলিম উদ্দিনসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। পরে উপজেলা যুবলীগ পৌর শহরে এক বিক্ষোভ মিছিল করে দক্ষিণ বাজার এলাকায় প্রতিবাদ সভা করে। প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি তাজ উদ্দিন। পুলিশ এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।
এরপর পৌর মিলনায়তনে তাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেনের সঞ্চালনায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুহাম্মদ সিরাজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার উদ্দিন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, পৌর মেয়র আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী, বড়লেখা সদর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে মুঠোফোনে বক্তব্য দেন জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন এমপি। এসময় হুইপ বলেন, ‘যুবলীগের শোভাযাত্রায় হামলার ঘটনাটি দুঃখজনক। জড়িতদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
উপজেলা যুবলীগের সভাপতি তাজ উদ্দিন আহমদ শনিবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ র‌্যালিতে পৌর যুবলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন ও নোমান আহমদের নেতৃত্বে হামলা হয়েছে। সংগঠনের শাহবাজপুর ইউনিয়ন সভাপতিসহ কয়েকজন আহত হয়েছেন। কেন হামলা হয়েছে বুঝতে পারছি না। আমরা সিনিয়র নেতৃবৃন্দকে জানিয়েছি। কোনো সন্ত্রাসীর জায়গা নেই সংগঠনে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
পৌর যুবলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন শনিবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘আমি কোনো হামলা করিনি। আমি আমাদের দোকানের সামনে দাড়িয়েছিলাম। মিছিল থেকে উস্কানিমূলক স্লোগান দেওয়া হয়। আমার উপর র‌্যালি থেকে হামলা করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে আমাদের দাওয়াতও দেওয়া হয়নি। আগের দিনের পৌর যুবলীগের অনুষ্ঠান স্থগিত করিয়েছে উপজেলা যুবলীগ। হামলার অভিযোগ ঠিক নয়।’
বড়লেখা থানার অপারেশন অফিসার (এসআই) অমিতাভ দাস তালুকদার শনিবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘বড় ধরনের কোনো বিশৃঙ্খলা হয়নি। দুটি গ্রুপ হয়ে গিয়েছিল। তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত আছে।’