ব্রেক্সিটের চূড়ান্ত সময় ঘোষণা টেরিজার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক,

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া, ব্রেক্সিট কার্যকরের ডেডলাইন ঘোষণা করলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে। ২০১৯ সালের ২৯ মার্চ রাত ১১টায় ইউরোপীয় ইইউ থেকে বেরিয়ে যাবে ব্রিটেন। আগামী বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সে এই সংক্রান্ত বিলটি উত্থাপন করা হবে। প্রস্তাবিত বিলে এই সময়সুচির প্রস্তাব করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার টেরিজা মে বলেন, ব্রেক্সিট নিয়ে আমাদের দৃঢ় সংকল্পে কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই। এটি বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে। এই ঐতিহাসিক আইনটির প্রথম পৃষ্ঠায় কালো ও সাদা হরফে উল্লেখ থাকবে ২০১৯ সালের ২৯ মার্চ রাত ১১টায় যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করবে। ইইউ ছাড়ার ব্যাপারে ব্রিটিশ জনগণ তাদের গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষার জানান দিয়েছে। এখন এই বিল সংশোধন প্রক্রিয়ায় কোনও সময়ক্ষেপণ সহ্য করা হবে না।

হাউস অব লর্ডসের ক্রসবেঞ্চার জন কের অবশ্য বলেন, আমরা যদি চাই তাহলে যে কোনও পর্যায়ে আমরা নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করতে পারি। আমরা জানি সেটা করলে আমাদের অংশীদাররাও খুব খুশি হবে। ব্রেক্সিটপন্থীরা এমন একটি ধারণা তৈরি করেছেন যে, আর্টিকেল ৫০ অনুসারে, ২০১৯ সালের ২৯ মার্চ আমরা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইইউ থেকে বের হয়ে যাব। কিন্তু এটা সঠিক নয়। এই স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্রেক্সিট কার্যকরের বিষয়টি বিভ্রান্তিমূলক। আমাদের ইইউ চুক্তি সংক্রান্ত আইনটি দেখে নেওয়া দরকার।

এর আগে গত জুনে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জানান, যুক্তরাজ্যে কিছু অভ্যন্তরীণ সংকট সত্ত্বেও ব্রেক্সিট বাস্তবায়ন সংক্রান্ত আলোচনার প্রস্তুতি অব্যাহত আছে।

২০১৬ সালে এক গণভোটে ২৮ জাতির ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছাড়ার পক্ষে রায় দেন ব্রিটিশ নাগরিকরা। এক্ষেত্রে অভিবাসন ইস্যুকে প্রচারণার বড় হাতিয়ার করে ব্রেক্সিটপন্থীরা।