বুফন গুডবাই

ক্রীড়া ডেস্ক,

বয়স ৩৯ পেরিয়ে গেছে, তবু পারফরম্যান্সে বিন্দুমাত্র ভাটা পড়েনি। প্রতিটা ম্যাচেই দুর্বার তিনি। ক্লাব বলেন আর দেশ বলেন দুই মঞ্চেই আলো ছড়ান। বলছিলাম জিয়ানলুইজি বুফনের কথা। কয়েকদিন হলো বর্ষসেরা গোলরক্ষকের মুকুটে চুমু খেয়েছেন। সে দিন হাসিমাখা মুখে বলেছিলেন নিজের স্বপ্নময় দিনগুলোর কথা, বলেছিলেন প্রিয় জার্সিটা আরও একটু রাঙানোর কথা। আর হলো না! এ বুঝি নিয়তির খেলা, এ বুঝি যাওয়ার বেলা। ঘরের মাঠ সান সিরোতে নিজ দেশের বিদায়ী দিনে বিদায় বলে দিলেন বুফনও। বিদায় বলেছেন আরও দুই ইতালিয়ান ফুটবলার-আন্দ্রেয়া বারজাল্লি ও ড্যানিয়েল ডি রসি।

প্রায় দুই দশক ইতালির হয়ে খেলছেন বুফন। দেশকে দুহার ভরে দিয়েছেন। ১৭৫টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন তিনি। যার মধ্যে আছে চারটি বিশ্বকাপ খেলার রেকর্ডও। জিতেছেন ২০০৬ সালের জার্মানি বিশ্বকাপ। যাবার বেলায় চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি বুফন। বলেছেন, ‘এমনটা আশা করি নি। এটা সত্যিই হতাশার। এ কান্না আমার নিজের জন্য নয়, আমার দেশের ফুটবলের জন্য। চলে যেতে খারাপ লাগছে। কিন্তু দলের হারটা আমকে ভীষণ দুঃখ দিলো।’

দেশের জার্সিতে বুফনকে দেখা না গেলেও ইতালীয় লিগে জুভিদের হয়ে এখনো খেলবেন। ক্লাব জুভেন্টাসের অধিনায়ক বুফন। ক্যারিয়ারে বহু কীর্তিতে ভাগ রয়েছে বুফনের। সর্বকালের অন্যতম সেরা গোলরক্ষক ভাবা হয় তাকে। পেলের প্রকাশিত ১০০ জন বিখ্যাত ফুটবলারদের তালিকায় নাম লেখান বুফন। আট বার ইতালীয় লীগে বর্ষসেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার জিতেছেন। বুফনই একমাত্র গোলরক্ষক যিনি উয়েফা বছরের সেরা ক্লাব ফুটবলার পুরস্কার জিতেছেন।