মনিরুল ইসলাম মিম্বই’র স্মরণ সভায় শিক্ষামন্ত্রী ”মানুষের মনে বেঁচে থাকবেন তিনি”

স্টাফ রিপোর্টার::

বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি প্রয়াত মনিরুল ইসলাম মিম্বই’র স্মরণ সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন , কর্মধারায় মানুষের মনে অনন্তকাল বেঁচে থাকবেন তিনি। সংগঠনের দুঃসময়ে যারাই দায়িত্ব নিয়ে কাজ করেন- তাদেরকে এভাবে সম্মাননা জানানো হয়। এভাবেই সুন্দর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্মরণ করা হয়। মিম্বই ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শেও এক রাজনীতিক। তিনি নেতা না হলেও ছাত্রলীগের জন্য কাজ করে এ ছাত্র সংগঠনটিকে সংঘটিত করেছেন। আজ সেকথাই আওয়ামী লীগ নেতা জানাচ্ছেন। তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে কোন পদের অধিকারী না হলেও তাকে তৎক্ষালিন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা একজন সভাপতির আসনে বসিয়েছিল। আমরা সকলেই আজ পর্যন্ত তার অভাব বোধ করছি। তিনি দল অন্তপ্রাণ এক নেতা ছিলেন।

সোমবার দুপুরে বিয়ানীবাজার উপজেলা অডিটুরিয়ামে নিরুল ইসলাম মিম্বই স্মৃতি পরিষদের সভাপতি বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি নজমুল হোসেনের সভাপতিত্বে এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা খালেদ সাইফুদ্দিন জাফরীর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ উপরোক্ত কথা বলেন।

শোকসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খান, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হাসিব মনিয়া, বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ দ্বারকেশ চন্দ্র নাথ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নাজিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বাবুল ও জাকির হোসেন, পৌর মেয়র আব্দুস শুকুর প্রমুখ।

সভায় অন্যান বক্তারা বলেন, ‘৭৫ পরবর্তী বিয়ানীবাজার ছাত্রলীগকে সংঘটিত করতে ভূমিকা পালনকারী একমাত্র আওয়ামী লীগ নেতা ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি প্রয়াত মনিরুল ইসলাম মিম্বই। তিনি সেদিন দিনরাত পরিশ্রম করে ছাত্রলীগকে সংঘটিত করে ছিলেন বলেই কালের পরিক্রমায় আওয়ামী লীগের উপজেলার বৃহৎ পর্যায়ে আসীন হয়েছে। আজ সোমবার উপজেলা সম্মেলন কক্ষে তাঁর মৃত্যুর এক বছর পর অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় বক্তারা দল নিবেদিত মুনিরুল ইসলামের অবদান এভাবেই তুলে ধরেন।

তৎক্ষালিন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে গঠন করা মনিরুল ইসলাম স্মৃতি পরিষদ মনিরুল ইসলাম মিম্বইয়ের উপর প্রকাশিত ‘সারথি’ স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিও বিশেষ অতিথিরা।