গোলাপগঞ্জে তথ্য অধিকার আইন অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি ::

সিলেটের গোলাপগঞ্জে তথ্য অধিকার আইন-২০০৯ বিষয়ক অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুর (১১ মার্চ) আড়াইটায় উপজেলা অডিটোরিয়ামে এ সভা অনুষ্ঠিত হয় । উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য কমিশনের পরিচালক ড. মো: আব্দুল হাকিম। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মামুনুর রহমানের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফনিদ্র সরকার, আমুড়া ইউপি চেয়ারম্যান রুহেল আহমদ, বাদেপাশা ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ, বুধবারীবাজার ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাব উদ্দিন কামাল প্রমুখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, আমাদের দেশের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী তাদের অধিকার সম্পর্কে জানেন না। জনগণের অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে। তথ্য অধিকার আইনে একজন আবেদনকারী তার প্রয়োজনীয় তথ্য চেয়ে নির্দিষ্ট ফরম পূরণ করবেন। তথ্য না পেলেও আবেদনকারীর আপিল করার সুযোগ রয়েছে। তথ্য আর লুকিয়ে রাখার সুযোগ নেই। তথ্য অধিকার নিশ্চিত করছে সরকার। সরকারি-বেসরকারি ও স্বায়ত্তশাষিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা জনগণকে নির্দিষ্ট সময়ে তথ্য জানাতে বাধ্য। যদি কোন কারণে সঠিক সময়ে তথ্য পাওয়া না যায় তাহলে আপিলেট কমিশনারের কাছে আপিল করা যাবে।

প্রধান অতিথি আরো বলেন, তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ এর ৭ ধারা অনুযায়ী যে সকল তথ্য প্রদান করলে রাষ্ট্র বা সরকারের ক্ষতি হতে পারে এমন তথ্য শুধু দেয়া যাবে না। তবে কি কারণে দেয়া যাবে না তা আবেদনকারীকে লিখিতভাবে জানিয়ে দিতে হবে। জনগণের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে তথ্য অধিকার নিশ্চিত করা অত্যন্ত জরুরি হয়ে উঠেছে। বিশ্বায়নের এ যুগে যে জাতি যত তথ্য সমৃদ্ধ সে জাতি তত উন্নত। তথ্য প্রাপ্তির অধিকার আজ চিন্তা, বিবেক ও বাক-স্বাধীনতার একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। তাই সুশাসন প্রতিষ্ঠায় তথ্য অধিকার আইন প্রণয়ন বর্তমান সরকারের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করতে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তথ্য কমিশন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের যে কোন নাগরিক এখন বিশ্বের যে কোন প্রান্ত থেকে বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের তথ্য ও তথ্য কমিশনের কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে পারছেন। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার তথ্য প্রযুক্তিবান্ধব সরকার। তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ বাস্তবায়ন বাংলাদেশ সরকারের একটি মহৎ উদ্যোগ। তথ্যের অবাধ প্রবাহ এবং জনগণের তথ্যের অধিকার নিশ্চিতকরণের নিমিত্তে এ আইন প্রণীত হয়েছে। তথ্য অধিকার আইন জনগণের এ মৌলিক অধিকারের স্বীকৃতি দিয়ে তথ্য অধিকার বাস্তবায়নের মাধ্যমে জনগণের ক্ষমতায়নের পথ সুগম করেছে।