বিয়ানীবাজারে শিক্ষকের বেত্রাঘাতে শিক্ষার্থী আহত

বিয়ানীবাজারকণ্ঠ ডেস্ক ::

সরকার গাইড বই নিষিদ্ধ করলেও মাদ্রাসায় গাইড বই না নেয়ায় এক মাদ্রাসা ছাত্রকে বেত্রাঘাত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিয়ানীবাজার উপজেলার মাথিউরা সিনিয়র ফাযিল মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী মারজান আহমদকে মাদ্রাসায় গাইড বই না নেয়ার অপরাধে বেত্রাঘাত করেন শিক্ষক মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদি। এ অভিযোগ শিক্ষার্থীর স্বজনদের। বিষয়টি মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের দায়িত্বশীলদের প্রাথমিকভাবে শিক্ষার্থীর পরিবার থেকে অবহিত করা হয়েছে।

মাথিউরা পূর্বপাড় এলাকার ফখরুল ইসলামের পুত্র মারজান আহমদ বাড়িতে দিয়ে পরিবারের সদস্যদের কাছে বিষয়টি অবহিত করে। তার পীঠে ও দুই বাহুতে ব্রেতাঘাতের বেশ কয়েকটি চিহ্ন রয়েছে। পীঠের একটি আঘাত থেকে রক্ত বের হওয়ার চিহ্ন এবং বাম হাতের বাহুতে বেতের আঘাতে রক্ত জমাট বাধার বিষয়টি ফুটে উঠে।

শিক্ষক মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদি বলেন, ক্লাসে লেখা পড়া পারেনা। এক পর্যায়ে নিজেকে সামলে রাখতে পারিনী। বেত দিয়ে কয়েকটি মেরেছি। পরে নিজের ভুল বুঝতে পেরে ক্লাসে গিয়ে তাকে খুজে আর পাইনি। এ ঘটনা আমি খুব অনুতপ্ত ও লজ্জিত। শ্রেণি কক্ষে বেত নেয়া ও গাইড বই নিষিদ্ধ বিষয়ে তাঁর জানা আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি জানা আছে, শ্রেণি কক্ষে তাকে অমনোযোগী দেখে নিজেকে সামলে রাখতে পারিনী।

এ বিষয়ে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল আলিম বলেন, বিষয়টি শিক্ষার্থীর পরিবারের কাছ থেকে শুনেছি। ম্যানেজিং কমিটির দায়িত্বশীলরাও অবহিত হয়েছেন। আমি শিক্ষার্থীর পরিবারকে আশ্বস্থ করেছি- বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হবে।