সেই ত্রিভুবনে ফের ছিটকে পড়ল বিমান

বিয়ানীবাজারকণ্ঠ ডেস্ক ::

নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর আবার আলোচনায় উঠে এসেছে। ১৩৯ যাত্রী নিয়ে বিমানবন্দরটিতে ছিটকে পড়েছে মালয়েশিয়ার একটি বিমান। তবে এতে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ঘটনার পর সাময়িক বন্ধ রয়েছে বিমান উঠানামা। বিমানবন্দরটি চালু হতে আরও কত সময় লাগতে পারে তা এখনো জানা যায়নি।

শুক্রবার স্থানীয় সময় সকাল পৌনে দশটার দিকে কুয়ালালামপুরের উদ্দেশ্যে আকাশে ওড়ার সময়েই দুর্ঘটনার শিকার হয় মালিন্দ এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি। রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়লেও বিমানের কোনো যাত্রী হতাহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়নি। দুর্ঘটনার পর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে আসা সব বিমান ঘুরিয়ে দেয়া হয়।

কাঠমুন্ডু ট্রিবিউনের খবরে বলা হয়, বিমানবন্দরের মুখপাত্র প্রেমনাথ ঠাকুর জানান, ‘কুয়ালালামপুরগামী মালয়েশিয়ার এ বিমান উড্ডয়ন করার সময় এতে সমস্যা দেখা দেয়ায় পাইলট বিমানটির ওড়া বাতিল করলে এটি রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে।’

তিনি বলেন, এটি রানওয়ে থেকে ১০০ ফুট দক্ষিণে ছিটকে পড়ে। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

গত ১২ মার্চ ২০১৮ সালে স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে কাঠমান্ডুর এই বিমানবন্দরে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়। এতে মোট ৭১ জন আরোহী ছিল। যার মধ্যে ৫১ জন নিহত হয় এবং ২০ জনকে জীবিত উদ্ধার হয়। নিহতদের মধ্যে ২৬ জন বাংলাদেশি।