বিয়ানীবাজারে গৃহবধূর শরীরে গরম পানি ঢেলে নির্যাতন

স্টাফ রিপোর্টার ::

যৌতুকের দাবীতে এক গৃহবধূর শরীরে গরম পানি ঢেলে নির্যাতন করেছে স্বামীসহ পরিবারের সদস্যরা। পিটিয়ে ওই গৃহবধূর বাম হাত ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে কাতরাচ্ছেন আছিয়া বেগম নামের ওই গৃহবধূ। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে পুলিশ জানায়। বিয়ানীবাজার উপজেলার মুড়িয়া ইউনিয়নের বড়উধা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, প্রায় ১২বছর আগে বিয়ে হয় দরিদ্র পরিবারের কণ্যা আছিয়া বেগমের। তার স্বামী ছাদ উদ্দিন স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম। বিয়ের পর থেকে স্বামীসহ পরিবারের সদস্যরা তাকে যৌতুকের দাবীতে নির্যাতন করতেন। এ নিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠক হয়েছে। এসব বৈঠকে ছাদ উদ্দিন ও তার ভাই জয়নাল আহমদ আর নির্যাতন করবেনা বলে স্ট্যাম্পে লিখিত অঙ্গিকারনামা দিয়েছে। এরপরও তাদের নির্যাতন থেমে থাকেনি।
মঙ্গলবার দুপুরে যৌতুকের দাবীতে ফের আছিয়া বেগমের উপর চড়াও হন স্বামী ছাদ উদ্দিন, ভাসুর জয়নাল ও জা’ রাজিয়া বেগম। এ সময় গরম পানি এনে ছুঁড়ে মারলে আছিয়ার পিঠের অনেকাংশ ঝলসে যায়। স্বামীর রুলের আঘাতে তার বাম হাত ভেঙ্গে যায়।
নির্যাতিত আছিয়া বেগম জানান, স্বামী, ভাসুর এবং জা’ মিলে যৌতুকের দাবীতে পিটিয়ে তার বাম হাত ভেঙ্গে দিয়েছেন। এছাড়াও উত্তপ্ত গরম পানি ছোঁড়ে তার পিঠ এবং বুকের প্রায় ৩০ভাগ অংশ ঝলসে দিয়েছে। তারা আছিয়াকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল বলে জানান তিনি।
স্থানীয় ইউপি সদস্য নাজিম উদ্দিন বলেন, ভাসুর কর্তৃক ইমামের স্ত্রীকে নির্যাতনের খবর পেয়েছি। বিয়ানীবাজার থানার এস.আই শাহ আলম ঘটনার বলেন- এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।