বিশ্বকাপের বাকি ম্যাচগুলো দেখেননি নেইমার

ক্রীড়া ডেস্ক,

বেলজিয়ামের কাছে হেরে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নেয়ার পর বিশ্বকাপের বাকী ম্যাচগুলো আর দেখেননি বলে জানিয়েছেন ব্রাজিল সুপারস্টার নেইমার। এমনকি কোন ফুটবলের দিকেও তাকাতে পারেননি বলে জানান বিশ্বের এই সবচেয়ে দামী খেলোয়াড়।

সাক্ষাৎকারে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) এ ফুটবল তারকা বলেন,‘এ সময় আমার এমন অবস্থা হয়ে গিয়েছিল যে, বলতে শুধু বাকী ছিল আমি আর ফুটবল খেলতে পারবো না। কিন্তু আমি কোন ফুটবলের দিকেই তাকাতে পারছিলাম না। বিশ্বকাপের বাকী ম্যাচগুলোও আমি দেখার ইচ্ছে হারিয়ে ফেলি।’

‘এ সময় আমি শোকাচ্ছন্ন হয়ে পড়ি। ওই ঘটনায় আমি সত্যিই বিমর্ষ হয়ে পড়ি। তবে এখন দু:খ বোধ কাটিয়ে উঠেছি। আমার ছেলে , পরিবার, বন্ধুবান্ধব সাবই এখানে রয়েছে। তারা কেউ আমাকে মলিন অবস্থায় দেখতে চায় না।’

গত বছর রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তিতে বার্সেলোনা থেকে পিএসজিতে যোগ দেয়া এই ব্রাজিলীয় সুপারস্টার মনে করেন, ক্লাব হোক কিংবা জতীয় দল, প্রত্যাশার দ্বৈত চাপ কাঁধের উপর থাকবেই। তিনি বলেন,‘ আমি যখন ১৭, ১৮ বছর তখনও শুধু ব্রাজিল দল নয়, ক্লাব ফুটবলেও চাপ নিয়ে খেলেছি। সব সেরা খেলোয়াড়রাই এমন চাপ অনুভব করেন। এমন চাপ মোকাবেলা করার জন্য আমি নিজেকে প্রস্তুত করে নিয়েছি। জানি, সমর্থকদের প্রত্যাশা মাফিক ফলাফল না পেলে এই চাপ আরো বাড়তে থাকে।’

বিশ্বকাপে ফাউলের কবলে পড়ার পর নেইমারের অতি নাটকীয় আচরণ ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়েছে। এ প্রসঙ্গে নেইমার বলেন,‘মানুষ খুব দ্রুত সমালোচনা শুরু করে। সেখানে একজন ফাউল করেন এবং অন্যজন ফাউলের শিকার হন। আমি বিশ্বকাপ খেলতে চাই, প্রতিপক্ষকে হারাতে। কারো লাথি খেতে নয়। আমাকে নিয়ে সমালোচনা ছিল অতিরঞ্জিত। কিন্তু আমি একজন খেলোয়াড়। এ ধরনের বিষয়ের সঙ্গে মানিয়ে নিতে অভ্যস্ত। একই সময়ে আমি খেলতে এবং রেফায়িং করতে পারবো না। তবে আমার প্রত্যাশা মাফিক কিছু করার মতো সুযোগ সেখানে থাকে।’