বিয়ানীবাজারের কৃতি সন্তান শাকুর মজিদ আইএফআইসি ব্যাংক সাহিত্য পুরস্কার গ্রহণ করলেন

আইএফআইসি ব্যাংক সাহিত্য পুরস্কার গ্রহণ করেছেন বিশিষ্ট লেখক স্থপতি শাকুর মজিদ।
শনিবার (আজ) দুপুরে রাজধানীর আইএফআইসি টাওয়ারে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিশিষ্টজন শাকুর মজিদের হাতে সম্মাননা স্মারক, ক্রেস্ট ও নগদ ৫ লক্ষ টাকা পুরস্কার তুলে দেন।
এ সময় শাকুর মজিদকে বেশ উৎফুল্ল দেখা যায়।
এক প্রতিক্রিয়ায় শাকুর মজিদ বলেন, ‘আসলেই আমি যা দেখি, নিজের আত্মতৃপ্তির জন্য তা লিখি। কোন কোন সময় এ লেখাগুলো পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়ে যায়।’
তিনি বলেন, ‘যেকোন পুরস্কার গৌরব ও আনন্দের। আইএফাইসি পুরস্কার আমার লেখালেখির জগতকে আরো শাণিত করবে এবং কর্তব্যও বাড়িয়ে দিয়েছে।’
বাংলা সাহিত্যে আরো অবদান রাখতে সকলের উৎসাহ কামনা করেছেন শাকুর মজিদ।

জানা যায়, আইএফআইসি ব্যাংক সাহিত্য পুরস্কার-২০১৬ এর জন্য সেরা লেখক নির্বাচিত হন শাকুর মজিদ এবং খসরু চৌধুরী। শাকুর মজিদের ‘ফেরাউনের গ্রাম’ এবং খসরু চৌধুরীর ‘সুন্দরবনের বাঘের পিছু পিছু’ বই দুটির জন্য তারা এ পুরস্কার পান।
অর্থমূল্যে এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সাহিত্য পুরস্কার। গত বছরের ২৯ অক্টোবর আইএফআইসি ব্যাংকের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
বরেণ্য সাহিত্যিক ও সাহিত্য সমালোচকদের নিয়ে গঠিত নির্বাচকমণ্ডলী, বাছাই কমিটি ও বিচারকমণ্ডলী সেরা দুটি বই নির্বাচন করে।
এ সময় জানানো হয়েছিল, অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নির্বাচিত লেখকদের ৫ লাখ টাকা (প্রতিটি বইয়ের জন্য), সম্মাননাপত্র ও ক্রেস্ট প্রদান করা হবে।
আজ (২২ সেপ্টেম্বর) ছিল পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখকদের জন্য সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। শাকুর মজিদ তাঁর স্ত্রী ড. হোসনে আরা জলিকে নিয়ে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন।
তহ্যমতে, ‘আইএফআইসি ব্যাংক- সৃজনশীল সাহিত্যর সহযাত্রী’ এই স্লোগান সামনে রেখে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের সমসাময়িক জীবিত লেখকদের সৃজনশীল সাহিত্যকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে ২০১১ সাল থেকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়।