টেস্ট অভিষেককে জন্য সিলেটে ব্যাপক আয়োজন

ক্রীড়া ডেস্ক ::

চা বাগান আর পাহাড়ের কোল ঘেঁষে গড়ে উঠা সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম বাংলাদেশের অষ্টম ভেন্যু হিসেবে নাম লেখাতে যাচ্ছে টেস্ট ক্রিকেটে। আগামী ৩ অক্টোবর বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের টেস্ট ম্যাচের মধ্য দিয়ে অভিষিক্ত হতে যাচ্ছে দেশের অন্যতম নয়নাভিরাম এ ক্রিকেট স্টেডিয়াম।

টেস্টের কুলীন অঙ্গনে সিলেট স্টেডিয়ামের অভিষককে রাঙিয়ে তুলতে ব্যাপক আয়োজনের প্রস্তুতি নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি), সিলেট বিভাগীয় ক্রিকেট সংস্থা ও সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)।

২০১৪ সালে ১৮ হাজার ৫০০ দর্শক ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন এই স্টেডিয়াম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হওয়ার পর এখনো পর্যন্ত ৭টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে সিলেটে। ২০১৪ সালের বিশ্ব টি-টোয়েন্টির ৬টি ও চলতি বছরে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হয়েছিল সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

চার বছরের অভিজ্ঞতা জমিয়ে অবশেষে এবার ক্রিকেটের অভিজাত আঙিনায় নাম লেখাতে যাচ্ছে সিলেট স্টেডিয়াম। এর আগে ঢাকার মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম, বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম, নারায়ণগঞ্জের খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, খুলনার শেখ নাসের স্টেডিয়াম ও বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে টেস্ট ক্রিকেটের আসর বসে। দেশের অষ্টম ভেন্যু হিসেবে এবারই প্রথমবারের মতো সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টেস্ট ম্যাচ হতে যাচ্ছে।

অভিষেক টেস্ট ম্যাচটিকে স্মরণীয় করে রাখতে প্রস্তুতি হিসেবে তৈরি করা হচ্ছে বিশেষ স্মারক কয়েন। এ কয়েন দিয়েই হবে সিলেটের প্রথম টেস্ট ম্যাচের টস। এছাড়াও থাকছে বিশেষ স্যুভেনিয়র ও ‘গ্লিম্পস অব সিলেট’ নামে বিশেষ একটি প্রকাশনা।

প্রকাশনা প্রসঙ্গে সিলেট বিভাগীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মিডিয়া কর্মকর্তা মোস্তফা ফরিদুল হোসেন কোরেশী জানান, রঙিন এই প্রকাশনায় সিলেটের ইতিহাস, ঐতিহ্য, পর্যটন, ক্রিকেটে সিলেটের পথচলা, সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ইতিহাস প্রভৃতি নানা তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, দেশ-বিদেশের খ্যাতনামা ক্রীড়া সাংবাদিক, ক্রীড়া ব্যক্তিত্বদের লিখা এই প্রকাশনায় ছাপা হচ্ছে। এছাড়া যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি, বিসিবি পরিচালকদের লেখাও এই প্রকাশনায় ঠাঁই পাচ্ছে।

এদিকে অভিষেক এ টেস্টকে ঘিরে সিলেট সিটি করপোরেশনকে (সিসিক) নগরীর সড়কগুলোতে আলোকসজ্জা করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে সিলেট বিভাগীয় ক্রিকেট সংস্থা। এছাড়াও নগরীর গুরুত্বপূর্ণ মোড় গুলোতে তোড়ন নির্মাণ করতে যাচ্ছে সিলেট বিভাগীয় ক্রিকেট সংস্থা। এদিকে বিভাগীয় ক্রিকেট সংস্থার উদ্যোগে মোড়ে মোড়ে ক্রিকেটারদের ছবি সম্বলিত পোস্টার ও অস্থায়ী প্রতিকৃতি নির্মাণ করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম নাদেল  বলেন, সিলেট স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট আমাদের জন্য নতুন মাইলফলক। এটি আমাদের জন্য গর্বেরও। যে কারণে এই আয়োজনকে ঘিরে আমরা আগের চেয়ে বেশি কিছু করার চেষ্টা করেছি। সিলেটের অভিষেক টেস্ট ম্যাচকে স্মরণীয় রাখতে আমরা স্মারক কয়েন করছি। স্যুভেনিয়রের পাশাপাশি একটি বিশেষ প্রকাশনাও থাকছে। এই প্রকাশনাটি সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে বের হচ্ছে।

সিলেটের অভিষেক টেস্ট নিয়ে ৩১ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন ও ১ নভেম্বর আনন্দ র‍্যালির আয়োজনের তথ্যও জানিয়েছেন বিসিবির এ কর্মকর্তা।

এদিকে আগামী ৩ নভেম্বর থেকে ৭ নভেম্বর সিলেটে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের টিকেটমূল্যও নির্ধারণ করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।
সিলেটে সর্বনিম্ন ৫০ টাকায় দেখা যাবে টেস্ট ম্যাচ। স্টেডিয়ামের পশ্চিম গ্যালারি ও গ্রিনহিল এরিয়ার টিকেট ৫০ টাকা, পূর্ব গ্যালারির টিকেট ৮০ টাকা, ক্লাব হাউজের টিকেট ২০০ টাকা এবং গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের টিকেট ৫০০ টাকায় পাওয়া যাবে।

প্রসঙ্গত, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে সাজানো সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের টি-টোয়েন্টি ও টেস্টের পর এ বছরই হতে যাচ্ছে ওয়ানডে অভিষেকও। জিম্বাবুয়ে সিরিজের পরই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই মাঠে একটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে টাইগাররা।