বিয়ানীবাজার শিল্পকলা একাডেমীর প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত

বিয়ানীবাজারকণ্ঠ.কম ::

বিয়ানীবাজার শিল্পকলা একাডেমীর নবগঠিত কমিটির অভিষেক, প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন ও একাডেমীর প্রয়াত সদস্য এডভোকেট আব্দুল মুমিত স্বপন এর স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২মার্চ বিকাল ৫টায় উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর কার্যালয়ে দুই পর্বে এ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

বিয়ানীবাজার শিল্পকলা একাডেমীর সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আরিফুর রহমান এর সভাপতিত্বে ও শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আব্দুল ওয়াদুদ’র সঞ্চালনায় প্রথমে একাডেমীর প্রয়াত সদস্য এডভোকেট আব্দুল মুমিত স্বপন এর স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। শোক সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র মোঃ আব্দুস শুকুর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জেসমিন আক্তার, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাসুম মিয়া, কবি ফজলুল হক, লেখক আব্দুল মালিক ফারুক প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র মোঃ আব্দুস শুকুর বলেন, এডভোকেট স্বপন ভাই একাধারে বহুগুণের অধিকারী একজন সৎ, স্বজ্জন, নিষ্টাবান ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তিনি পেশাগত ক্ষেত্রেও নিজের আয়ের কথা বিবেচনা করার পূর্বে মানুষের উপকারের কথা বিবেচনা করতেন। আইন পেশা ছাড়াও তিনি বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে অধিষ্ঠিত ছিলেন। আমৃত্যু তিনি দক্ষতা ও সততার সাথে স্বীয় দায়িত্ব পালন করে গেছেন। তাঁর মতো বিনয়ী, নিষ্টাবান ও অনুপ্রেরণাদায়ী ব্যক্তিত্বকে হারিয়ে আমরা অপূরণীয় ক্ষতির শিকার হয়েছি। তথাপিও মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি আল­াহ যেন উনাকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করেন।
অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে বিয়ানীবাজার শিল্পকলা একাডেমীর নবগঠিত কমিটির অভিষেক ও প্রশিক্ষণ কোর্সের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধান অতিথি মেয়র মোঃ আব্দুস শুকুর। নবগঠিত কমিটির সদস্যদের পরিচয় করিয়ে দেন সভাপতি ও ইউএনও কাজী মোঃ আরিফুর রহমান।

সভাপতির বক্তব্যে কাজী আরিফুর রহমান বলেন, শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি চর্চার উর্বর ভূমি এই বিয়ানীবাজার। এ উপজেলা শহরে যা হয় অনেক জেলা শহরেও সংস্কৃতির এমন চর্চা হয় না। এই অঞ্চল এক সময় ক্ষুদ্রে নবদ্বীপ খ্যাত সংস্কৃতি ও জ্ঞাণচর্চার চারণ ভূমি ছিল। ঐতিহ্যের সেই পরমপরায় পঞ্চখন্ড তথা আজকের বিয়ানীবাজার মুক্ত চিন্তা ও সংস্কৃতি চর্চায় গৌরবময় অবস্থানে অধিষ্ঠিত। এ জনপদের ইউএনও হিসেবে আমি নিজেকে গর্বিত মনে করি। তিনি বলেন, বিয়ানীবাজার শিল্পকলা একাডেমীকে নতুন ভাবে জাগিয়ে তুলার প্রয়াস চালাচ্ছি। আশা করছি সকলের সম্মেলিত প্রচেষ্টা ও সহযোগীতায় বিয়ানীবাজার শিল্পকলা একাডেমী আরো সক্রিয় হয়ে উঠবে। এই প্রতিষ্ঠান হবে এ অঞ্চলের সংস্কৃতি চর্চার আলোকবর্তিকা।

অনুষ্ঠানে উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার নেতৃবৃন্দ, শিল্পকলা একাডেমীর নবগঠিত কমিটির সদস্য বৃন্দ, প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। পরিশেষে সমবেত কন্ঠে সঙ্গীত পরিবেশন করেন একাডেমীর শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীরা।