মহান মে দিবস ২০২০ উপলক্ষে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমানের বাণী

মহান মে’ দিবস উপলক্ষে আমি দেশ-বিদেশে কর্মরত সকল বাংলাদেশী শ্রমিক-কর্মচারীসহ সারা বিশে^র সকল মেহনতী মানুষের প্রতি আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

১৮৮৬ সালের এই দিনে উত্তর আমেরিকার শ্রমজীবি জনগণ দৈনিক ৮ ঘন্টা কাজ, ন্যায্য মুজুরী ও শোভন জীবনের জন্য যে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের সূচনা করেছিলেন এবং তার পরবর্তী দিনগুলোতে জীবন দিয়ে যে লড়াই সফল করেছিলেন-তারই স্বীকৃতি হিসাবে আজ বিশ^ব্যাপী ১লা মে-মহান মে’ দিবস হিসাবে পালিত হচ্ছে। এই দিনটি তাই শ্রমজীবি মেহনতী মানুষের ঐক্য, সংগ্রাম ও বিজয়ের প্রতীক।

এ বছর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বিশে^র শ্রমজীবি মানুষ সংকটের মধ্যেও জীবন বাজী রেখে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তাদের এই সাহসী কর্মকান্ডের চালিকা শক্তিও মহান মে’ দিবসের চেতনা। মানবজাতির এই দারুন সংকট কালে শ্রমজীবি ও পেশাজীবি জনগণের এমন সাহস ও ত্যাগের ফলেই প্রায় স্থবির অর্থনীতির চাকা এখনও ঘুরছে-মানুষ সেবা ও চিকিৎসা পাচ্ছে।

আমি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সেবা, শিল্প ও ব্যবসা খাতের সকল মানুষকে এই মহান দিনে আন্তরিক অভিনন্দন জানাচ্ছি এবং তাদের কল্যাণ ও সুরক্ষায় এগিয়ে আসার জন্য সরকার, মালিক এবং সমাজের সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।
মহান মে দিবস অমর হোক।

মহান মে দিবস ২০২০ উপলক্ষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বাণী :

বাণী
অপ্রতিরোধ্য করোনা ভাইরাসের আক্রমণে বিপর্যস্ত বিশে^ এবার মহান মে’ দিবস পালিত হতে যাচ্ছে। শ্রমজীবি জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের বিজয়ের এই ঐতিহাসিক দিনে আমি আমার নিজের এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের পক্ষ থেকে দেশ-বিদেশে কর্মরত সকল বাংলাদেশী শ্রমিকসহ সারা বিশে^র শ্রমজীবি-কর্মজীবি জনগণকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

বাংলাদেশের শ্রমজীবি মানুষ এখনও মহান মে’ দিবসের অর্জন দৈনিক ৮ ঘন্টা কাজ, ন্যায্য মুজুরী ও শোভন জীবন থেকে বঞ্চিত। কিন্তু তার পরেও তারাই দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রেখেছে, বিদেশে উপার্জন করে দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করছে। এই দু:সময়েও তারা রোগাক্রান্ত মানুষের সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

মহান মে’ দিবসের প্রাক্কালে আমি বাংলাদেশের শ্রমজীবি, কর্মজীবি, পেশাজীবি জনগণের অবদান বিবেচনা করে তাদের প্রাপ্য অধিকার, ন্যায্য মুজুরী ও শোভন জীবন নিশ্চিত করার জন্য সরকার ও মালিক পক্ষের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।