তিলপাড়া ইউনিয়নে বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে’র আর্থিক সহায়তা প্রদান

বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে’র উদ্যোগে উপজেলার ১০ ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার দু’শতাধিক সনাতন ধর্মাবলম্বী ও শতাধিক পবিত্র কোরআনে হাফেজদের মধ্যে আর্থিক সহায়তা প্রদান কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে।

শনিবার (২৩ মে) বেলা ৩ টায় তিলপাড়া ইউনিয়নের দাসউরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হলরুমে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আর্থিক সহায়তা কার্যক্রমের সমাপ্তি হয়।

মহতি এ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মো. নাসির উদ্দিন খান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে খাদ্যসামগ্রী ও আর্থিকভাবে সাহায্য করে যাচ্ছে। এতে সাধারণ মানুষ অনেকটা স্বস্তিতে রয়েছেন।

তিনি বলেন, পেশাজীবী, শ্রমজীবী এবং নি¤œ ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষ কিছুটা বিপদের মধ্যে আছেন। তারা কারো কাছে সহজেই হাত পাততে দ্বিধাবোধ করছেন। এজন্য তাদের পাশে দাঁড়াতে প্রবাসী নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান এডভোকেট নাসির খান। তিনি মামুন-মুন্না জাকিরের নেতৃত্বাধীন আর্থিক সাহায্য প্রদানকে স্বাগত জানান এবং সাহায্যের হাত আরো প্রসারিত করার অনুরোধ করেন।

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদ ’৯৫ এর ক্রীড়া সম্পাদক ও সংগঠনের মুখপাত্র জুবের আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদ ’৯৫ এর এজিএস মোহাম্মদ জামাল হোসেন, আলহাজ হাফিজ আব্দুল মতিন, আয়ারল্যান্ড প্রবাসী মো. সাহাব উদ্দিন।

মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান বলেন, পৃথিবীকে এক মহাবিপদের সম্মুখিন করেছে করোনাভাইরাস। এতে ইউরোপ ও আমেরিকার বিভিন্ন দেশে লক্ষ লক্ষ আক্রান্ত এবং হাজার হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করেছেন। এরপরও বিশেষজ্ঞরা এ ভাইরাস সম্পর্কে এখনো অন্ধকারে রয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী সিদ্ধান্তে আমরা এখনো মৃত্যুপুরিতে পরিণত হইনি। তিনি সরকারের নির্দেশনা মেনে চলার আহ্ব্বান জানান।

আতাউর খান আরো বলেন, মামুন-মুন্না-জাকিরের নেতৃত্বাধীন এ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বিয়ানীবাজারের বিভিন্ন পেশার মানুষের পাশে দাঁড়ানোয় সত্যি আমরা অভিভূত। তিনি প্রবাসী নেতাদের অভিনন্দন জানান এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ভাইস চেয়ারম্যান জামাল হোসেন বলেন, আমাদের সমাজের সবচেয়ে সম্মানীত ও নিরহংকার ব্যক্তিরা হচ্ছেন পবিত্র কোরআনে হাফেজ। তাঁরা আল্লাহর কিতাব অন্তরে লালন ও ধারণ করে দ্বীনি শিক্ষা ফেরি করে বেড়াচ্ছেন। আর বিপদে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে মানুষের উপকার করাও একধরণের ইবাদত। বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে তাদের পাশে দাঁড়িয়ে অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এজন্য তিনি বিয়ানীবাজারবাসীর পক্ষ থেকে এ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান।

সংগঠনের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জুবের আহমদ বলেন, উন্নত জীবন ও জীবিকার তাগিদে আমরা প্রবাসী। কিন্তু মা, মাটির টানে আমরা সবসময় বাংলাদেশের মানুষের পাশে আছি এবং আগামীতেও পাশে থাকব।

তিনি বলেন, মামুন-মুন্না-জাকিরের নেতৃত্বে¡ করোনাভাইরাত দুর্গতদের জন্য বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে যে কার্যক্রম হাতে নিয়েছে তা সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এজন্য তিনি উপজেলার সকল জনপ্রতিনিধি, মিডিয়া কর্মী ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সহযোগিতার ভূয়শী প্রশংসা এবং কৃতজ্ঞা প্রকাশ করেন।

সাপ্তাহিক বিয়ানীবাজার বার্তা পত্রিকার সম্পাদক ছাদেক আহমদ আজাদ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের খণ্ডকালিন প্রভাষক মো. জহির উদ্দিন, বিয়ানীবাজার পৌর আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুল হান্নান, প্রাথমিক শিক্ষক সাধন চন্দ্র দাশ, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের দু’বারের সাবেক সদস্য কে এইচ সুমন, তিলপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আলী হোসেন নয়ন, বিয়ানীবাজার উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা জুনেদ আহমদ, ছাত্রনেতা কামিল আহমদ, নাহিদুর রহমান প্রমুখ।

পরে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে মহান আল্লাহর দরবারে মোনাজাত করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন হাফেজ আব্দুল মতিন।