গোলাপগঞ্জে দুপক্ষের সংঘর্ষ, আ’লীগ সভাপতি সহ আহত ১২

গোলাপগঞ্জে বাচ্ছাদের লিচু খাওয়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আমুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বদরুল হকসহ ১২ জন আহত হয়েছেন।

বুধবার (২৭) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে উপজেলার আমুড়া ইউনিয়নের শিলঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সম্মুখে এ ঘটনাটি ঘটে।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন- বদরুল হক (৬৪),মখন আলী (৬৫), আবুল লেইছ (৫৪), কিবরিয়া আহমদ (১৯), নাইম আহমদ (১৮), কামরান হোসেন (৪০), তুহিন আহমদ (৩৬), খাইরুল হক (৬০), মারজান আহমদ (১৭), ইমন আহমদ (১৮)সোহেল আহমদ (২৭), শাহান আহমদ (৩৭)।
সংঘর্ষে গুরুতর আহত হওয়ায় আমুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বদরুল হক, খাইরুল হক, কিবরিয়া আহমদ ও নাইম আহমদকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানা যায়।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূ্ত্রে জানা যায়, শীলঘাট গ্রামে বাচ্ছাদের লিচু খাওয়াকে কেন্দ্র করে
দুটি পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। এসময় খবর পেয়ে আমুড়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বদরুল হকসহ কয়েকজন মুরব্বি বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টায় ঘটনাস্থলে যান।
এসময় একটি পক্ষ বদরুল হক সহ অপর পক্ষের উপর হামলা করলে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

তাৎক্ষণিক সংঘর্ষের খবর পেয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার এস আই আবুল কাশেমের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আমুড়া ইউনিয়নের ৭নং শিলঘাট ইউপি সদস্য, যুবলীগ নেতা তারেক আহমদ জানান, ছোটদের মধ্যে লিচু খাওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত আছে বলেও জানান তিনি।

গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছে। উভয় পক্ষের কেউ এখনো থানায় মামলা দায়ের করেনি বলেও জানান তিনি।